আগুন থেকে নিরাপদ থাকতে যা করবেন

সাম্প্রতিক সময়ের একাধিক অগ্নিকাণ্ডের পর আমরা পুরোনো পদক্ষেপ বাস্তবায়নেই আটকে আছি। ২৬ বছর আগে ভবন নির্মাণের নীতিমালা প্রণীত হয়েছিল। এর মধ্যে পৃথিবীতে অনেক পরিবর্তন এসেছে। নতুন প্রযুক্তি এসেছে। ফলে পুরোনো সেই নীতিমালা হালনাগাদ করা হয়েছে। সেটি অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। এটিই আসলে এখনকার প্রাথমিক পদক্ষেপ।

দেশে এখন যেভাবে ভবনগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে, সেখানে উপদেশ বা পরামর্শ কোনো কাজে আসবে না। উন্নত দেশগুলোতে অনেক নিয়মকানুন আছে। যেমন: আগুন লাগলে ভেজা তোয়ালে দিয়ে মাথা ঢাকতে হবে, দরজার নিচের অংশ বন্ধ করে দিতে হবে, যাতে ধোঁয়া না ঢোকে ইত্যাদি। কিন্তু এসব প্রয়োগ করার মতো পরিস্থিতি আমাদের অধিকাংশ ভবনে নেই। তাই ভবন যথাযথ নিয়মে নির্মাণ করাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। বনানীর এফ আর টাওয়ারে ইমার্জেন্সি এক্সিট (জরুরি অবস্থায় নামার জন্য সিঁড়ি) বন্ধ ছিল। স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, ভবন নির্মাণে নিয়ম মানা হয়নি। রক্ষণাবেক্ষণ এবং প্রশিক্ষণের অভাবও ছিল। তবে আমাদের তৈরি পোশাক কারখানাগুলো বিদেশি ক্রেতাদের চাপে অনেকটাই নিয়ম মানছে। তাদের কর্মীরা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।